আবাসিক খাতে গ্যাস সরবরাহে সমস্যা থাকবেই – জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী

0
376
বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, আবাসিকখাতে গ্যাসের সমস্যা থাকবে।  তাই যারা আবাসিক গ্যাস ব্যবহার করছেন, তারা ধীরে ধীরে এলপিজিতে চলে যান।
Lpg Gas the mail bd
বুধবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মোকাররম ভবনে ‘ন্যাশনাল সেমিনার অন রিনিউয়েবল অ্যানার্জি’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী জাতীয় সেমিনার ও নবায়নযোগ্য শক্তি প্রযুক্তির সরঞ্জামাদির এক প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
 ধীরে ধীরে গ্যাসের চাপ কমে আসায় সমস্যা তৈরি হচ্ছে মন্তব্য করে নসরুল হামিদ বলেন, “আমাদের মেইন টার্গেট হলো পরিকল্পিত শিল্প এলাকায় সর্বপ্রথম গ্যাস সরবরাহ করা। আমরা সে জায়গার দিকে ধাবিত হচ্ছি।  আমরা চাচ্ছি যে ইন্ডাস্ট্রিয়াল গ্রোথ যেন হয়, সেখানে যেন গ্যাস পাওয়া যায়।

“আবাসিক খাতে আগামী দিনে সবাই এলপিজিতে চলে যাক, আমরা এটা চাইছি।”

আবাসিক খাত বাদ দিয়ে শুধু শিল্প খাতকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে কিনা- এ প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “আমি সেটাও বলছি না।  আমরা চাইছি, যে পরিবর্তনটা আসছে, সেটার দিকে যেন সবাই ধাবিত হয়।  আমরা চাইছি এলপিজি যাতে কাজে লাগে।  সেটা সকলের জন্য সাশ্রয়ী করার চেষ্টা হচ্ছে, সকলে যাতে সেটা পায়।

আগামী তিন বছরে বাংলাদেশে আবাসিক চাহিদার ৭০ শতাংশ যাতে এলপিজি থেকে ব্যবহার করা যায়, সরকার সেই পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে বলে জানান তিনি।

শীত মৌসুম দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রাকৃতিক গ্যাসের আবাসিক সরবরাহে ঘাটতি দেখা দেয়।  এবার সেই সঙ্কট প্রকট আকার ধারণ করায় ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন স্থানে বাসাবাড়ির গ্রহকদের অভিযোগ আর ভোগান্তির খবর আসতে থাকে।  এই সঙ্কটের ধাক্কা লেগেছে সিএনজি ফিলিং স্টেশনগুলোতেও, যা ক্রমেই বাড়ছে।

আবাসিক গ্রহকদের আশার কথা শোনাতে না পারলেও শিল্প মালিকদের আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেছেন জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “শিল্প এলাকায় আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।  আমরা মালিকদের বলেছি, শিল্প এলাকায় যে পরিমাণ গ্যাস দরকার, হয়তো পাঁচ-ছয় মাস সময় লাগতে পারে, স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় আসতে সে সময়টা লাগবে।”

আর আবাসিক খাতে গ্যাসের যে এখন সমস্যা হচ্ছে, দুই-তিন দিনের মধ্যে তা কমে আসবে বলে আশা করছেন প্রতিমন্ত্রী।
“বাখরাবাদ পাইপ লাইনে যে সমস্যা সেটার সমাধান করা হচ্ছে।  এটার জন্য তিন-চারদিন লাগতে পারে।”

নসরুল হামিদ বলেন, ভবিষ্যতে এলপিজি ব্যবহার করলে এই চাপের সমস্যা থাকবে না।  এলপিজি-র দাম এখন অনেক কমে গেছে এবং আরও কমাতে সরকার কাজ করছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here