মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২৪

আঞ্চলিক গবেষনাগার গোপালগঞ্জ এর উদ্যেগে কৃষকদের প্রশিক্ষণ ও সুষম মাত্রার সারের সুপারিশ কর্ড বিতরণ 

যা যা মিস করেছেন

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ-

মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইন্সটিটিউটের আওতাধীন আঞ্চলিক গবেষণাগার গোপালগঞ্জ এর উদ্যোগে ৫০ জন কৃষকের মাঝে সুষম মাত্রার সার ব্যবহারের সুপারিশ কার্ড বিতরণ ও ভেজাল সার শনাক্তকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।

আজ বুধবার ( ২৯ নভেম্বর) সকাল ১০ ঘটিকায় গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া উপজেলায় উক্ত প্রশিক্ষণ ও কার্ড বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

প্রশিক্ষণে প্রধান সমন্বয়কারী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গোপালগঞ্জ আঞ্চলিক গবেষণাগারের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জনাবা হাছিনা আকতার। এছাড়া, আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা কেন্দ্রীয় গবেষণাগারের উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও মনিটরিং কর্মকর্তা জনাব একে.এম. জগলুল পাশা, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা কৃষি অফিসার জনাব মো. রাকিবুল ইসলাম,ফরিদপুর আঞ্চলিক গবেষণাগারের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জনাব ড. নুরুল হুদা আল মামুন, উর্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জনাব গোলাম কিবরিয়া, জনাব মো. জুনেদ মিয়া, বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জনাব রাজির আল ফাহাদ, জনাব মোঃ শাহীন মিয়া,জনাব মামুন হাওলাদার ও জনাব কল্পনা বেগম।

 

উক্ত প্রশিক্ষণে গোপালগঞ্জ আঞ্চলিক গবেষণাগারের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জনাবা হাছিনা আকতার সুষম মাত্রার সার প্রয়োগ করলে কি কি উপকার এবং না প্রয়োগ করলে ফসলের ফলন কমার পাশাপাশি মাটি ও পরিবেশের জন্য মারাত্মক হুমকিস্বরুপ বিষয়ে বলেন। এছাড়া সার ক্রয় করার পূর্বে সরেজমিনে কৃষকরা কিভাবে ভেজাল সার শনাক্ত করবেন তার পদ্ধতি শেখার গুরুত্ব তুলে ধরেন। ভেজাল সার শনাক্তের গুরুত্ব বর্ণনা করে বলেন সার ভেজাল হলে সুপারিশকৃত মাত্রার সার প্রয়োগ করলেও কোন লাভ হবে না,বরং ক্ষতিগ্রস্থ হবে।

 

 

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ