মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২৪

সফলতার দশ বছরে পবিপ্রবি’র প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রাম

যা যা মিস করেছেন

পবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ বরিশাল বিভাগের সাধারন শিক্ষার্থীদের মানসম্মত উচ্চশিক্ষা গ্রহনের সুযোগ করে দিতে এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নির্ভর সমাজ গঠনের লক্ষ্যে “পটুয়াখালী কৃষি কলেজ” এর “পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়” এ রূপান্তর ছিলো একটি বৈপ্লবিক উদ্যোগ। পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ (এফবিএ) প্রতিষ্ঠিত হয় ১৪ জুন, ২০০৩ সালে। বর্তমানে অনুষদটিতে ৬ টি বিভাগের অধীনে সর্বমোট ২৫ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা কর্মরত আছেন। অনুষদের ৬ টি বিভাগের মাঝে ৪ টি বিভাগ ( ফাইন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং, মার্কেটিং, ম্যানেজমেন্ট, অ্যাকাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম)থেকে নিয়মিত স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি প্রদান করা হচ্ছে।
প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রামে পবিপ্রবির যাত্রা এবং বর্তমান চিত্র আমাদের দেশের শিক্ষার্থীদের কাছে এমবিএ বা মাস্টার্স অফ বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন এর চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলছে। বর্তমান বিশ্বে এমবিএ প্রোগ্রামকে ব্যবসা এবং ব্যবস্থাপনার সর্বোচ্চ মর্যাদাসম্পন্ন কোর্স হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে শিক্ষার্থীদের চাহিদার কথা বিবেচনা করে এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মিত প্রোগ্রাম এর পাশাপাশি চালু করা হয়েছে প্রফেশনাল এমবিএ গ্রোগ্রাম/ইএমবিএ প্রোগ্রাম। সেই দিক থেকে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় কোনোভাবেই পিছিয়ে নেই। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ এর অধীনে জানুয়ারী-২০১৪ সাল থেকে প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রাম, নিয়মিত এমবিএ এর পাশাপাশি চালু হয়। বর্তমানে এই প্রোগ্রামটি সফলতার দশ বছর পেরিয়ে এগারো বছরে পদার্পন করেছে। ২০১৪ সালের জানুয়ারী মাস থেকে চালু হওয়া পবিপ্রবির প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রাম (যার পূর্বনাম-ইএমবিএ) থেকে এ পর্যন্ত ৪১২ জন শিক্ষার্থী এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেছে। বর্তমানে প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রামে ৮০ জন শিক্ষার্থী বিভিন্ন বর্ষে ও মেজরে অধ্যয়নরত আছেন।

প্রফেশনাল এমবিএ তে অধ্যয়নরত বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীদের ভাবনা ১ম সেমিস্টারে অধ্যয়নরত ছাত্রী খুরশিদা তাজনিন সূচনা “প্রফেশনাল এমবিএ” নিয়ে তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন যে, “পবিপ্রবিতে প্রফেশনাল এমবিএ করার পেছনে তার বেশ কিছু কারণ রয়েছে, যেমন উন্নত চাকরির সম্ভাবনা, উন্নত ব্যবসায়িক দক্ষতা, ইন্টারন্যাশনাল এক্সপোজার, নেটওয়ার্কিং, ব্যক্তিগত এবং পেশাদারিত্ব বিকাশ।”
৪র্থ সেমিস্টারে অধ্যয়নরত ছাত্র সাদমান ফয়জুল বলেন, “বর্তমানে চাকরির বাজারে কোনো ভালো চাকরির জন্যে যে সকল শর্ত দেওয়া থাকে, তার মাঝে শুরুতেই থাকে এমবিএ ডিগ্রির আবশ্যকতা। কাজের ক্ষেত্রে এই ডিগ্রি প্রতিনিয়ত নতুন মাত্রা যোগ করে আসছে।”

এমবিএ ডিগ্রী প্রাপ্ত সাবেক শিক্ষার্থী ওমর ফারুক জানায়, “এই প্রোগ্রাম পেশাগত জীবনে খুবই কার্যকরী ভূমিকা পালন করছে।”এমবিএ ডিগ্রী প্রাপ্ত আরেক সাবেক শিক্ষার্থী রেশমা খানম তামান্না জানান যে, “এমবিএ একজন মানুষকে এনালিটিক্যাল ফ্রেমওয়ার্ক জানতে যথেষ্ঠ সহযোগিতা করে। যেমন- ব্যবসায় কোন রিস্কটা কখন নিলে ভালো হবে বা খারাপ হবে বা কতোটা ঝুকিপূর্ন, একটি কাজ করতে কতোটা খরচের ব্যাপার আছে এবং তা কতোটা লাভজনক, কোন ব্যবসায়িক পরিকল্পনা টা আপনার সুফল বয়ে আনবে বা নানাবিধ ব্যবসা সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।”
প্রফেশনাল এমবিএ এর সফলতার দশ বছর পূর্তিতে শিক্ষকদের অভিমত ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের সাবেক ডিন ও প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রামের সাবেক ডিরেক্টর প্রফেসর মোঃ জাকির হোসেন বলেন, “প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রামটি বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের ব্যবসায় শিক্ষা ও কর্মক্ষেত্রে দক্ষতা বৃদ্ধিসহ গত ১০ বছর ধরে নানাবিধ যুগপযোগী চাহিদা পূরণ করে আসছে। ২০১৪ সালের জানুয়ারি থেকে পবিপ্রবি কর্তৃপক্ষের একান্ত সহযোগীতায় শিক্ষার গুনগত মান বজায় রেখে সফলতার সাথে প্রোগ্রামটি চালু রয়েছে যা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তিকে অধিকতর উজ্জ্বল করেছে এবং কর্মমুখী শিক্ষার মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরি করে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।”

ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের বর্তমান ডিন ও প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রামের উপদেষ্টা প্রফেসর আবুল বাশার খান বলেন, “প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচিতি বৃদ্ধি করেছে। পাশাপাশি ডিগ্রিধারী শিক্ষার্থীদের জ্ঞান, পেশাদারিত্ব ও অভিজ্ঞতা বৃদ্ধিতে সহয়তা করছে।”

প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রামের ডিরেক্টর প্রফেসর ড. তকিবুর রহমান বলেন, “প্রফেশনাল এমবিএ এর মাধ্যমে পবিপ্রবি গত দশ বছর যাবত পেশাজিবী ও নিয়মিত ছাত্র-ছাত্রীদের অত্যন্ত যত্নসহকারে এবং কোয়ালিটি বজায় রেখে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। এই ডিগ্রির মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রিতে দক্ষ জনশক্তি তৈরি এবং সরবরাহ করে আসছি। ভবিষ্যতে এই প্রোগ্রামটির প্রয়োজনীয়তা আরো বৃদ্ধি পাবে এবং আমরা কমিউনিটি উন্নয়নে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারবো বলে আশাবাদী।”

“প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রাম” অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কমিটির সদস্য মোঃ মমিন উদ্দিন বলেন, “এসডিজি-4 কে মাথায় রেখে এই প্রোগ্রামটি পরিচালিত হচ্ছে। এখানে বিভিন্ন পেশা ও পর্যায়ে কর্মরত ব্যক্তিগণ তাদের পেশাগত উন্নতির লক্ষ্যকে সামনে রেখে প্রফেশনাল এমবিএ করেছেন এবং করছেন। এমবিএ ডিগ্রি প্রাপ্ত সাবেক শিক্ষার্থী যারা বরিশাল বিভাগে কর্মরত ছিলেন তাদের অধিকাংশের পূর্ববর্তী একাডেমিক পড়ালেখা ছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, কুয়েট এবং অন্যান্য নামকরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। এতে স্পষ্ট প্রতীয়মান হয়, পবিপ্রবির প্রফেশনাল এমবিএ প্রোগ্রাম কোয়ালিটি সম্পন্ন এবং লিডারশীপ গঠনের একটি আকর্ষণীয় প্লাটফর্ম।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত বলেন, ” প্রফেসনাল এমবিএ প্রোগ্রামটা চাকুরীজীবের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করছে। চাকুরীজীবীদের নিজস্ব চাকরি বহাল রেখে দক্ষতার বৃদ্ধির জন্য এই প্রোগ্রাম চালু থাকা দরকার। “

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ