রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২৪

নান্দাইলে যাতায়াতের রাস্তা কাটার প্রতিবাদ করায় নারী সহ ৪জনকে পিটিয়ে জখম ॥ থানায় অভিযোগ দায়ের

যা যা মিস করেছেন

শেখ জহিরুল ইসলাম নান্দাইল ময়মনসিংহ প্রতিনিধি।

 

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নের বাতুয়াদী গ্রামের লোকজন যাতায়াতের রাস্তা প্রতিপক্ষ কর্তৃক প্রকাশ্যে দিবালোকে কেটে নষ্ঠ করার প্রতিবাদ জানালে ২ নারী সহ ৪জনকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করা হয়েছে। উক্ত হামলা ও টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় রিয়াজ উদ্দিন বাদী হয়ে তিন জনের নাম উল্লেখ সহ অজ্ঞাত ২/৩জনের নামে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। বাতুয়াদী গ্রামের মোঃ রিয়াজ উদ্দিন কর্তৃক নান্দাইল মডেল থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ থেকে জানাগেছে, একই গ্রামের মৃত হরমুজ আলীর ৩ পুত্র যথাক্রমে ফজলুল হক, স্বপন মিয়া ও রিপন মিয়ার সাথে রিয়াজ উদ্দিন গংদের ৫৭ শতাংশ ভূমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে গোলযোগ চলে আসছে। গত ১৩ ডিসেম্বর বাদীপক্ষের লোকজন মামলার হাজিরা দিতে ময়মনসিংহ জেলা সদরে চলে যায়। এই সুযোগে ফজলুল হকের নেতৃত্বে ৪/৫জন বাদীর বাড়ীর সামনে ক্রয়কৃত চলাচলের রাস্তাটি কুপিয়ে কেটে বিনষ্ঠ করে ফেলে। এসময় সাবিনা আক্তার ও দেলোয়ারা খাতুন বিবাদীদের রাস্তা কাটতে বাধা নিষেধ করলে আসামীরা তাদের পিটিয়ে আহত করে। পরের দিন ১৪ ডিসেম্বর পুনরায় রিয়াজ উদ্দিন ও রনজু মিয়াকে একই স্থানে মামলার সকল বিবাদী সহ অজ্ঞাত ২/৩জন দেশীয় তৈরি মারাত্মক অস্ত্র নিয়ে হামলা করে মারপিট করে। এসময় আসামীরা স্বপন মিয়ার সাথে থাকা ৪০ হাজার ২শত টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায় এবং বিয়াজ উদ্দিনকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে খুন করার চেষ্ঠা করে। এসময় তাদের ডাক চিৎকারে আশেপাশের লোকজন চলে আসলে আসামীরা পালিয়ে যায়। এনিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। নান্দাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মজিদ জানান, উল্লেখিত ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। যথাযথ তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। আসামীদের অব্যাহত হুমকীর কারণে রিয়াজ উদ্দিন তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ভয়ে আতংকে রয়েছেন বলে জানান।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ