রবিবার, এপ্রিল ১৪, ২০২৪

তারাগঞ্জে দীর্ঘদিনের চলাচলের রাস্তা বন্ধ, থানায় অভিযোগ

যা যা মিস করেছেন

আরিফ শেখ, রংপুর প্রতিনিধিঃ

রংপুরের তারাগঞ্জে দীর্ঘদিনের ব্যবহারের রাস্তা বন্ধ করে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার অভিযোগ উঠেছে । কুর্শা ইউনিয়নের মাছুয়াপাড়া গ্রামে ওই রাস্তাটি বন্ধ করায় গ্রামের সাধারণ মানুষ ও কোমলমতি শিক্ষার্থীরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। তারাগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগও হয়েছে । এঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবারগুলো প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মাছুয়াপাড়া গ্রামের শ্রী খেরেন বৈশ্য ও তার ছেলে শ্রী নরি বৈশ্য বৃহস্পতিবার ২১ (মার্চ) দুপুর আনুমানিক ১টায় মাছুয়া পাড়ায় অবস্হিত দীর্ঘ দিনের চলাচলের রাস্তাটি টিন ও লোহার দরজা দিয়ে আটকিয়ে দেয় । এতে বন্ধ হয়ে যায় ওই রাস্তাটি। এলাকাবাসীর বাঁধা প্রদানেও তারা ওই রাস্তা খুলে দেয়নি ।

থানায় অভিযোগকারী শ্রী গোবিন্দ রায় বলেন, আমি জনস্বার্থে থানায় একটি অভিযোগ করেছি । মাছুয়া পাড়ার এই রাস্তাটি আমাদের বাপ-দাদার আমলের । সেই যুগ থেকে হাজার হাজার মানুষ চলাচল করছে । আমরা অন্তত ৩০০ টি পরিবার প্রতিনিয়ত এই রাস্তাটি ব্যাবহার করি । খেরেন বৈশ্য চাচা ও তার ছেলে শ্রী নরি বৈশ্য গায়ের জোড়ে এত দিনের পুরাতন চলাচলের রাস্তাটি বন্ধ করে দেয় । আমরা এলাকাবাসী বাঁধা দিলে ক্ষিপ্ত হয়ে গালাগালি শুরু করে দেয় । এক পর্যায়ে মারমুখো আচরণ শুরু করে দেয় । তাৎক্ষণিক ওয়ার্ড ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যান কে বিষয়টি জানাই। পরে বাধ্য হয়ে থানায় অভিযোগ করি । তারাগঞ্জ থানা পুলিশ এসে সার্বিক দিক তদন্ত করে বিষয়টি অমানবিক হওয়ায় দ্রুত ওই টিন ও লোহার দরজা সরিয়ে দেয় । কিন্তু পুলিশ যাওয়ার পরেই আবারো রাস্তায় ইট বিছিয়ে দেয় যাতে কোন মানুষ , সাইকেল , মোটরসাইকেল যেতে আসতে না পারে । শুক্রবারও একই অবস্থা হয়ে আছে । ওরা এখন ওই রাস্তায় চট বিছিয়ে ও চেয়ার-বেঞ্চ বসিয়ে আড্ডা দিচ্ছে , ঘুমাচ্ছে । আবার বড় বড় বস্তায় ইট বালু ঢুকিয়ে ফেলে রাখা হয়েছে। ফলে ওই রাস্তায় যাতায়াত একেবারে অসম্ভব হয়ে গেছে ।

রাস্তাটি নতুন নাকি পুরাতন সে ব্যাপারে জানতে চাইলে এলাকাবাসীর অনেক বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তি এগিয়ে আসেন । তারা জানায় , এই রাস্তাটি ২০-৩০ বছর আগের । এই রাস্তার ওপর নির্ভর করে অনেকেই জমিজমা কিনেছে ও ঘরবাড়ি করেছে । খেরেন ও তার ছেলে শ্রী নরি সম্প্রতি তাদের পাশের বাড়িটিও কিনে নেয় । ফলে একই মালিকের দুই বাড়ির মাঝে পরে যায় রাস্তাটি । এরই সুযোগ কাজে লাগিয়ে প্রায়ই রাস্তাটি বন্ধ করতে চায় । বৃহস্পতিবার করেও দেয় বন্ধ । পুলিশ খুলে দিলেও এখনও রাস্তায় ইটের বস্তা খামাল করে রাখা আছে । ফলে কেউ পারাপার হতে পারছেনা শান্তিতে ।

রাস্তা বন্ধের ব্যাপারে খেরেন বৈশ্য ও তার ছেলে শ্রী নরি বৈশ্যর কাছে জানতে চাইলে তারা জানান , আমরা রাস্তা বন্ধ করি নাই । আমাদের কেনা জমিতে আমাদের যা ইচ্ছে করব । আর কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি। এমনকি গণমাধ্যমে কোনো বক্তব্য দেবেন না বলেও জানান।

কুর্শা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মোঃ আবুল কালাম আজাদ জানান , রাস্তা বন্ধের ঘটনাটি শোনামাত্র ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে আপাতত প্রতিবন্ধকতা সরিয়ে দেওয়া হয়েছে ।

কুর্শা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আফজালুল হক সরকার জানান, উভয় পক্ষকে নিয়ে শনিবার বসে সমাধান করা হবে । এছাড়াও উভয়পক্ষকে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানে থাকতে বলা হয়েছে ।

তারাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিদ্দিকুল ইসলাম জানান, এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ প্রশাসন গিয়ে রাস্তা উন্মুক্ত করে দিয়েছে । অভিযোগের বিষয়ে আরও খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে । তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ