শনিবার, জুলাই ১৩, ২০২৪

বেইলি রোডে লাগা আগুনের ঘটনায় যারা হাসপাতালে ভর্তি আছেন তারা কেউ শঙ্কামুক্ত না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

যা যা মিস করেছেন

রাজধানীর বেইলি রোডে একটি বহুতল ভবনে লাগা আগুনের ঘটনায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল ও শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ১২ জন ভর্তি আছেন। তাদের কেউই শঙ্কামুক্ত নন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামান্ত লাল সেন।

শুক্রবার (০১ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টায় ঢামেক হাসপাতাল ও শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি রোগিদের অবস্থা পরিদর্শন শেষে এ তথ্য জানান তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গতকাল রাতে বেইলি রোডে একটি ভবনের রেস্টুরেন্টে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে, যা মোটেই কাম্য ছিল না। ওই দুর্ঘটনার পরে আমাদের এখানে (শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট) বেশ কিছু রোগী আসেন। আমাদের জানা মতে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। যাদের মৃত্যু হয়েছে, তারা কার্বন মনোক্সাইড বিষক্রিয়ার ফলে মারা গেছেন। যখন বদ্ধ ঘরে কেউ বের হতে পারে না, তখন শ্বাসনালিতে ওই ধোঁয়া চলে যায়। প্রত্যেকেরই তা হয়েছে। যাদের বেশি হয়েছে, তারা বাঁচতে পারেননি। অত্যন্ত দুঃখজনকভাবে তাদের মৃত্যু হয়েছে। এখনও যারা হাসপাতালে ভর্তি আছেন, তারা কেউ শঙ্কামুক্ত না।

তিনি বলেন, আমরা আহতদের সকাল থেকে চিকিৎসা দিচ্ছি। এখন আবার আমি আমাদের চিকিৎসকদের সঙ্গে বসবো। বসে পরিকল্পনা করবো, কীভাবে কি করা যায়। সবার কাছে অনুরোধ কেউ যেন হাসপাতালে ভিড় না করেন।

তিনি আরও বলেন, আজকে সকাল পৌনে ৭টার সময় প্রধানমন্ত্রী আমাকে ফোন করেছিলেন। তিনি বলেছেন, তুমি যাও, যা যা করার করবা। আমি সমস্ত রোগীদের দায়িত্ব নিলাম। রোগিদের চিকিৎসার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সবকিছু করা হবে।

এ সময় ৪৬টি মরদেহের মধ্যে ৩৮টি মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এখনও আটটি মরদেহ হস্তান্তর করা হয়নি। শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ১০ জন এবং ঢামেক হাসপাতালে ২ জন রোগী ভর্তি আছেন। শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি সবার শ্বাসনালি পুড়ে গেছে। এ জন্য কাউকে শঙ্কামুক্ত বলা যাচ্ছে না।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ