শনিবার, জুলাই ১৩, ২০২৪

শতবর্ষী জেলা পরিষদ ভবন ভেঙে ফেলার প্রতিবাদে স্মারক লিপি

যা যা মিস করেছেন

স্বীকৃতি বিশ্বাস, যশোরঃ

যশোরের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সুপারিয়ে ১১০ বছরের স্মৃতিবিজড়িত যশোরে ঐতিহ্যের স্মারক ‘ শতবর্ষী জেলা পরিষদ

ভবন’ পরিত্যক্ত ঘোষণা করে ভেঙে ফেলার উদ্যোগ গ্রহনের প্রতিবাদে স্মারক লিপি প্রদান করা হয়েছে।
আজ রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারী) দুপুর দেড়টায় যশোরের ঐতিহ্য রক্ষা সংগ্রাম কমিটি -এর উদ্যোগে যশোর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবরাউল হাছান মজুমদারমাধ্যমে স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রীর নিকট স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন যশোরের ঐতিহ্য রক্ষার সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক জনাব রুকুন উদ দৌল্লা, সদস্য সচিব জনাব এ্যাড. মাহমুদ হাসান বুলু, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হারুন অর রশিদ, জিল্লুর রহমান ভিটু, তসলিম উর রহমান, সাজেদ রহমান বকুল, হাবিবুর রহমান মিলন, এ্যাড.কনা, কাজল বিশ্বাস, প্রনব দাস প্রমুখ।

উল্লেখ্য যশোরের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের সুপারিশে ১১০ বছরের স্মৃতিবিজড়িত যশোরে ঐতিহ্যের স্মারক ‘৫ ফেব্রুয়ারি-২০২৪ এক স্মারকে শতবর্ষী এই লাল দালানকে ‘ পুরাতন জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ’ উল্লেখ করেশতবর্ষী জেলা পরিষদ ভবন’ পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে এবং ভেঙ্গে ফেলার অনুমতি দিয়েছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব জেসমিন প্রধান স্বাক্ষরিত চিঠিতে ভবনটিকে অকেজো ঘোষণা করে তা নিলামে বিক্রি করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

যশোরের ইতিহাস পড়ে জানা যায়- ব্রিটিশ ভারতের প্রথম জেলা হলো যশোর। যশোরকে জেলা করা হয় ১৭৮১ সালে। আর অবিভক্ত বাংলার সেলফ গভর্নমেন্ট অ্যাক্টের আওতায় ১৮৮৫ সালে যশোর ডিস্ট্রিক্ট বোর্ড প্রতিষ্ঠার প্রথম দিকেই ১৮৮৬ সালে যশোর ডিস্ট্রিক্ট বোর্ড প্রতিষ্ঠা করা হয়। ১৯৫৯ সালে তা পরিবর্তন করে ডিস্ট্রিক্ট কাউন্সিল করা হয় এবং ১৯৭৬ সালে স্থানীয় সরকার আইনে করা হয় জেলা পরিষদ।

যশোর ডিস্ট্রিক্ট বোর্ড প্রতিষ্ঠার ২৭ বছর পর ১৯১৩ সালে নিজস্ব ভবন স্থাপন করা হয়। ওই বছর ১৩ মার্চ এর উদ্বোধন করেন ডিস্ট্রিক্ট বোর্ডের তৎকালীন চেয়ারম্যান। এখনো অবিকৃত অবস্থায় সেই ভবনটি দাঁড়িয়ে আছে। এটি এখন কালের সাক্ষী গর্বিত ঐতিহ্যের স্মারক।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ