শনিবার, জুলাই ২০, ২০২৪

নান্দাইলে রাস্তার পার কেটে বসত বাড়ি ভরাট ধসে পড়তে পারে রাস্তাটি

যা যা মিস করেছেন

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি।

ময়মনসিংহের নান্দাইল পার কেটে বসত বাড়ি ভরাট করার গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সরজমিন দেখা গেছে উপজেলার ১৩ নং চরবেতাগৈর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের চরশ্রীরামপুর কোরেরপাড় কাউসারের বাড়ি থেকে লক্ষীরচর সীমানা পর্যন্ত চরশ্রীরামপুর মাইজপাড়া গ্রামের মাঝ দিয়ে প্রায় এক দের কিলোমিটার দীর্ঘ কাঁচা রাস্তা দিয়ে ২/৩ শত পরিবারের লোকজন ফসলের ক্ষেতে গৃহস্থালির‌ কাজ করে থাকে । চর এলাকার রাস্তার কারণে প্রতি বৎসর অল্প বৃষ্টিতে ভেঙে যাওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য প্রতি বৎসরে সংষ্কার করেন। এদিকে একই এলাকার মৃত সাহেদ আলীর পুত্র আব্দুর রশিদ ও তার ছেলে কামরুল,হাবিবুর রহমান,ও সুজন মিয়ার নেতৃত্বে বিগত কয়েক বৎসর ধরে রাস্তার পার কেটে মাটি ফেলে বসত বাড়ি ভরাট করে আসছে। এনিয়ে স্হানীয় এলাকাবাসী প্রতিবাদ করেও মাটি কাটা বন্ধ করতে না পারায় ১ নং ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ মজিবুর রহমান ও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ কে জানালে তাঁরাও শালিস দরবার করে নিষেধ করে ব্যার্থ হয়।
সরেজমিন ঘুরে তার সত্যতা পাওয়া গেছে, আব্দুর ও তার ছেলেদের বাড়ীতে গিয়ে পাওয়া যায় নি ।আব্দুর রশিদের রশিদের স্ত্রী হালিমা খাতুন বলেন আমরা খাস জায়গা থেকে মাটি কেটেছি।এব্যাপারে ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জানান প্রতি বৎসর এই রাস্তায় মাটি ফেলে সংস্কার করি আর এরা রাস্তার পার কেটে নিয়ে বাড়ি ভরাট করে।আব্দুর রশিদ ও তার ছেলেদের পরিষদে ডেকে নিয়ে নিষেধ করলে ও তারা মানছে না।
স্হানীয় এলাকাবাসী জানান, আমাদের চলাচল, ফসলের ক্ষেতে যাতায়তের এই একমাত্র রাস্তা দিয়ে আমাদের গরু ছাগল সহ কৃষিকাজ ও মালামাল নিয়ে যাতায়ত করতে হয়।আব্দুর রশিদ গং খুব প্রভাড়শালীও ভয়ন্কর প্রকৃতির লোক কারও কথা শুনেনা।বিকল্প কোন রাস্তা না থাকায় রাস্তাটি ভেঙে গেলে এই এলাকার সকল মানুষের চরম দুর্ভোগ সৃষ্টি হবে‌। আমরা উপজেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে সুবিচারের দাবি জানাচ্ছি।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ