শনিবার, মে ২৫, ২০২৪

পাঁচ কোটি ৬০ লাখ টাকার সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ দরপত্রে অনিয়মের অভিযোগ

যা যা মিস করেছেন

ঝালকাঠির নলছিটি পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী কাজী মো. মহসিন রেজার বিরুদ্ধে উপকূলীয় শহর জলবায়ু সহিষ্ণু প্রকল্পে (সিটিসিআরপি) পাঁচ কোটি ৬০ লাখ টাকার একটি সাইক্লোন শেন্টার নির্মাণের দরপত্র প্রক্রিয়ায় অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অনিয়মের বিষয়ে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের সিটিসিআরপি’র প্রকল্প পরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন মেসার্স মীর ব্রাদার্সসহ তিনটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

অভিযোগে জানা যায়, ঝালকাঠি পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী কাজী মো. মহসিন রেজা বর্তমানে নলছিটি পৌরসভায় সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি একটানা ১৭ বছর ঝালকাঠি পৌরসভায় চাকরি করার কারণে সেখানে দু-তিনটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তাঁ বিশেষ সখ্যতা গড়ে ওঠে। এরমধ্যে একটি প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ঝালকাঠি পৌরসভার বর্তমান মেয়র মো. লিয়াকত আলী তালুকদারের ছেলে মনিরুল ইসলাম তালুকদারের মালিকানাধীন মেসার্স ইসলাম ব্রাদার্স। গত ২১ আগস্ট নলছিটি পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডে পাঁচ কোটি ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ে উপকূলীয় শহর জলবায়ু সহিষ্ণু প্রকল্পের (সিটিসিআরপি) সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণের জন্য দরপত্র আহ্বান করেন কাজী মহসিন রেজা, যার টেন্ডার আইডি নম্বর ৮৫৯১৭১। টেন্ডার দরপত্র বিক্রির শেষ দিন ধায্য করা হয়েছে ২৫ সেপ্টেম্বর। এ দরপত্রে এমন কিছু শর্ত জুড়ে দেন যা একমাত্র মনিরুল ইসলাম তালুকদারের মালিকানাধীন বা নিয়ন্ত্রনাধীন লাইসেন্সেই ওই শর্ত পূরণ করতে পারবে। এমনকি দরপত্র বিজ্ঞপ্তি আহ্বানের পূর্বেই মহসিন রেজা তাঁর পছন্দের ঠিকাদারদের সিডিউল আগেই দিয়ে দেন।

সাইক্লোন শেল্টারের দরপত্র আহ্বানের পর ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসাস মীর ব্রাদার্স, মেসার্স ভাইভাই ব্রাদার্স, মেসার্স নুপুর কনস্ট্রাকশনের মালিকরা সিডিউল কিনতে গেলে তাদেরকে মহসিন রেজা নিরুৎসাহিত করে বলেন, ‘নলছিটি পৌরসভার সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণের কাজটি একজন বিশেষ ঠিকাদারকে দেওয়ার জন্য অনেক ওপর থেকে অর্ডার আছে, নাম বলা যাবে না। আপনারা অহেতুক টেন্ডার জমা দিতে পারেন কাজ পাবেন না, বরং জেলের ভাত খেতে হবে। সাইক্লোন সেল্টারের কাজটি যে কাউকে আমি দিতে পারি, সে ক্ষমতা আমার আছে। ইজিপি টেন্ডার আমি আহবান করেছি, পাসওয়ার্ড আমার কাছে। দরপত্র জমা দিলে কে কত ভাগ নিম্নদর, ঊর্ধদর, সমদর দিবে তা আমি দেখতে পারবো। আমার কথার বাহিরে কেহ দরপত্র জমাদিলে সে সমস্ত লাইসেন্স ব্লাক লিস্ট এবং পে-অর্ডার বাজেয়াপ্ত করে দেব। কাকে কাজ দেব, ওপরের অর্ডারে মেয়র এবং আমি সিদ্ধান্ত নেব।’

তিনি ঠিকাদারদের আরও বলেন, ‘সিটিসিআরপি প্রকল্পের পিডিকে আমি যা বলবো তিনি সে মোতাবেক কাজ করবেন। পিডির সঙ্গে আমার পাকাপাকি কথা হয়েছে।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নলছিটি পৌরসভার একাধিক ঠিকাদার বলেন, কাজী মহসিন রেজা মূলত ঝালকাঠি পৌরসভার মেয়র মো. লিয়াকত আলী তালুকদারের ছেলে মনিরুল ইসলাম তালুকদারের স্বার্থ রক্ষার জন্য বিশেষ কায়দায় নলছিটি এসেছেন। কোন ঠিকাদার সিডিউল কিনতে গেলে তিনি নিরুৎসাহিত করেন।

নলছিটি পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত সহকারী প্রকৌশলী কাজী মো. মহসিন রেজা বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে তা সত্য নয়। সিটিসিআরপি প্রকল্পের দরপত্র বিজ্ঞপ্তিতে আমার শর্ত জুড়ে দেওয়ার ক্ষমতা নেই, শর্তাবলী ঢাকা থেকে ঠিক করে দেওয়া হয়। পঁাচ কোটি ৬০ লাখ টাকার সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ কাজের খোঁজখবর নিতে আমার কাছে কোন ঠিকাদার আসেনি।

নলছিটি পৌরসভার মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওয়াহেদ খান বলেন, সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ কাজের টেন্ডার সিডিউল সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না। সহকারী প্রকৌশলী কাজী মহসিন রেজাকে মন্ত্রণালয় থেকে নলছিটি পৌরসভায় অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, তিনি খুব একটা নলছিটি পৌরসভায় আসেনও না। গত দেড় বছরে তিনি দুই-তিনবার নলছিটি পৌরসভায় এসেছেন।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ