বুধবার, জুন ১২, ২০২৪

কমরেড নিজাম উদ্দিনের মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মরণ সভা

যা যা মিস করেছেন

স্বীকৃতি বিশ্বাস, যশোরঃ

বাংলাদেশের বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগের নেতা ( সাবেক ওয়ার্কার্স পার্টি মার্কসবাদী যশোর জেলা কমিটির অন্যতম নেতা ) পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান কমরেড নিজামউদ্দিনের ৩য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে কেশবপুরে কমরেডের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আজ সোমবার ( ৫ সেপ্টেম্বর) বিকাল সাড়ে তিনটায় কেশবপুরের গড়ভাঙ্গায় স্মৃতি রক্ষা পরিষদের আহ্বানে স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
কমরেড সনদ কুমার হরির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের বিপ্লবী কমিউনিস্ট লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির জাহিদ, কমরেড এ্যাড.আবুল হোসেন, কমরেড তসলিম উর রহমান, কমরেড এ্যাডঃ আবুবক্কার সিদ্দিকী প্রমুখ।
নেত্ববৃন্দ তাদের বক্তব্যে কমঃ নিজাম উদ্দীনের অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন করে মেহনতি মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করার অঙ্গীকার করেন ৷

উল্লেখ্য কমরেড নিজাম উদ্দিন ছিলেন একজন শিক্ষক এবং তার বাইরে ছিলেন ( মাওবাদী- মার্কসবাদী) কৃষক শ্রেনীর প্রিয়জন তথা জনমানুষের নেতা। ওয়ার্কার্স পার্টির রাজনীতিকে জনগনের দুয়ারে নিয়ে যাওয়া নেতাদের মধ্যে তিনি ছিলেন একজন পূরধা ব্যক্তিত্ব। ছাব্বিশ বিল ও ভবদহ আন্দোলনের অন্যতম সংগঠন। কেশবপুরের বিভিন্ন সামাজিক আন্দোলনের অন্যতম রূপকার ছিলেন। যার ফল স্বরুপ কেশবপুর পাঁজিয়া ও গড়ভাঙার জনগন তাকে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছিলেন।
ক্ষমতার মসনদে বসার পরেও বাম আদর্শ থেকে কখনো বিচ্যুত হননি । শুধু সে একা নন তার পরিবার কেউ সংগঠিত করেছিলেন বাম রাজনীতিতে। তার দুই জন সন্তান যারা প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর যশোর জেলা শাখার নেতা ছিলেন। স্থানীয় সন্ত্রাস কিংবা পুঁজিবাদীদের রক্তচক্ষুকে কখনো ভয় পায়নি এমনকি পার্টি তথা বাম বিচ্ছেদ তার মাথায় কখনো ছিল না। এমন একজন কৃষকবন্ধু নেতা আজ আমাদের সমাজে বড়ই বিরল।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ