বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০২৪

শোককে শক্তিকে পরিণত করে স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তিকে প্রতিহত করার প্রত্যয় ব্যক্ত

যা যা মিস করেছেন

স্বীকৃতি বিশ্বাস, যশোরঃ

সারাদেশের ন্যায় যশোরের সকল উপজেলায় জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে অসহায় মানুষের মাঝে সেলাই মেশিন ও খাদ্য বিতরণ,আলোচনা সভা, দোয়া অনুষ্ঠানসহ নানামুখী কর্মসূচির মাধ্যমে পালন করা হয়েছে।
তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল মঙ্গলবার (১৫ আগষ্ট) বিকালে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মনিরামপুর উপজেলার শ্যামকুড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আয়োজনে চিনাটোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আলোচনা সভা ও শহীদদের স্মরণে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।
শ্যামকুড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হাজী আহাদুল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক ফারুক হােসেন।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্যে রাখেন নাজমা খানম, উপজেলা চেয়ারম্যান, মনিরামপুর ; আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশী কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য ও জেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবক এস এম ইয়াকুব আলী।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সাবেক উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জি এম মজিদ, আওয়ামী লীগ নেতা সুব্রত ব্যানার্জী, সাবেক পৌর কাউন্সিলর গৌর কুমার ঘােষ, সাবেক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মিকাইল হােসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা হেরমত আলী, সাবেক ছাত্রনেতা সন্দ্বীপ ঘোষ, নেহালপুর ইউপি চেয়ারম্যান এম এম ফারুক হুসাইন, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আবুল ইসলাম, সাবেক উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক স.ম. আলাউদ্দীন, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জামাল হােসেন, পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম রবি, পৌর কাউন্সিলর আইয়ুব পাটােয়ারী, কুদ্দুস, যুবলীগ নেতা শিপন সরদার, মহিলা নেত্রী আসমাতুন্নাহার, মাজেদা খাতুন, ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম বুলু, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সদস্য শরিফুল ইসলাম, মাহাবুর রহমান প্রমুখ।
এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।
বক্তব্যের শুরুতেই ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগষ্ট নিহত সকল শহীদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধা নিবেদন করে বক্তারা বলেন,আগস্ট মাস বাঙালি জাতির কলঙ্কর মাস। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার মধ্য দিয়ে বাঙালির বীরত্বগাঁথা ইতিহাসে কালিমা লেপন করা হয়। অথচ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশ কােন দিনই স্বাধীন হতো না। সেই জনদরদী নেতাকে স্বাধীনতা বিরােধী কুচক্রীমহল সপরিবারে হত্যার মাধ্যমে একটি কলঙ্কজনক অধ্যায় রচনা করেছিল। সেই শােককে শক্তিতে পরিণত করে ঐক্যবদ্ধভাবে স্বাধীনতা বিরােধী শক্তিকে প্রতিহত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরও শক্তিশালী করতে হবে এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হবে।

আলাচেনা সভায় বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ আগস্ট সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মােনাজাত করা হয়। পরে উপস্থিত সকলের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ