সোমবার, মে ২০, ২০২৪

বিসিএস ক‍্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হলেন খাদিমুল ইসলাম

যা যা মিস করেছেন

মোঃ মাসুম বিল্লাহ,ভালুকা প্রতিনিধিঃ ৪১ তম বিসিএসে চূড়ান্ত ফলাফলে শিক্ষা ক্যাডারে (রসায়ন) সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন খাদিমুল ইসলাম। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগ হতে কৃতিত্বের সাথে প্রথম শ্রেণীতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী সম্পন্ন করেন।

খাদিমুল ইসলাম ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার ভরাডোবা ইউনিয়নের পুরুড়া গ্রামের আবুল কাশেম খানের সন্তান।

খাদিমুল ইসলামের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে বড় ভাই আশিকুর রহমান,জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন,বড় বোন সরকারি তিতুমীর কলেজ থেকে বাংলায় স্নাতক সম্পন্ন করেছেন,খাদিমুলের যমজ ভাই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় হতে পাবলিক হেলথ থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন এবং ছোট ভাই বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি,এলএলএম শেষ করেছেন।

তিনি ভরাডোবা উচ্চ বিদ্যালয় হতে বিজ্ঞান বিভাগে এসএসসি ও ক‍্যামব্রিয়ান কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এইচএসসি কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়েছিলেন।

অনার্স শেষ করার পর প্রথমবার তিনি রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক,পাবনা শাখায় জেনারেল অফিসার হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে চার মাস সেখানে কর্মরত ছিলেন। ৩৮ তম বিসিএসে নন-ক‍্যাডারে উত্তীর্ণ হয়ে, সিলেট পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে যোগদান করেন খাদিমুল ইসলাম, সেখানে কর্মরত ছিলেন তিন মাসের অধিক সময়। তারই মধ্যে সিলেট পলিটেকনিকে যোগদান করার কিছুদিন পর সহকারী উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত হন,কিন্তু সেখানে যোগদান করেননি। শিক্ষা ক‍্যাডার হওয়ার আগে ৭ই ফেব্রুয়ারি ২০২২ সালে ভালুকা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ‍্যালয়ে প্রজ্ঞাপন আসার পর তিনি সেখানে সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন ।

খাদিমুল ইসলাম জানান, আমার সাফল্যের পিছনে যারা আছেন তারা হচ্ছেন আমার বাবা-মা। যাদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও দোয়ার বদৌলতে আমি বিসিএস পরীক্ষায় শিক্ষা ক্যাডার হতে পেরেছি। বাবা-মায়ের পর আমার জীবনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা পালন করেছেন আমার সহোদর বড় ভাই আশিকুর রহমান। তিনি আমাকে অনুপ্রেরণা দিয়েছেন, সাহস দিয়েছেন – যার ফলে আমি আজ শিক্ষা ক‍্যাডারে সাফল্য অর্জন করতে পেরেছি। আমার আরেক পরম শ্রদ্ধেয় প্রিয় ভাই মুহাম্মদ আশরাফুল আলম। তিনি আমাকে সকল দিক নির্দেশনা দিয়েছেন,তিনি আমার প্রেরণার উৎস। মুহাম্মদ আশরাফুল আলম ভাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার, আমতলী, বরগুনায় বতর্মানে দায়িত্বরত আছেন। আমাকে আরও প্রেরণা দিয়েছেন আমার ডিপার্টমেন্টের বড় ভাই,বর্তমানে বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারে এসি ল্যান্ড হিসেবে কর্মরত আব্দুল্লাহ আল বাকী,আমার হলের শ্রদ্ধেয় বড় ভাই খন্দকার আমিরুল হুদা,নয়ন ভাই,আনোয়ার ভাই,বন্ধুদের মধ্যে বিশেষ করে মাসুদ,জহিরুল,মুক্তার,সোহেল,তুহিন,জুমান,ছোট ভাই তানভির,আমার সহপাঠী সহ আরও অনেকে আমাকে প্রেরণা ও পথ দেখিয়েছেন।

তিনি আরও জানান, বিসিএস অনেক লম্বা যাত্রা। যারা ধৈর্য সহকারে সমস্ত পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে পারে,দিন শেষে তারাই সফল হয়। অনেকে মাঝ পথে এসে সমস্ত আশা হারিয়ে পিছিয়ে পরে। আমি যথা সাধ‍্য চেষ্টা করেছি আমার লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য। আলহামদুলিল্লাহ আমি সফলও হয়েছি। মহান আল্লাহ তায়ালা যা দিয়েছেন তাতেই শুকরিয়া। তবে আমার চেষ্টা অব‍্যাহত থাকবে। আমি যেনো আরও ভালো ক‍্যাটাগরিতে ক‍্যাডার অর্জন করতে পারি সেজন্য চেষ্টা করে যাবো,আমার পরবর্তী লক্ষ্য হচ্ছে বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারে উত্তীর্ণ হওয়া। সামনে যেনো আরও ভালো কিছু করতে পারি,সেজন্য আপনাদের সকলের কাছে দোয়া প্রার্থী।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ