বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০২৪

আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালনের ইতিহাস

যা যা মিস করেছেন

কীভাবে শুরু হল আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করা? কারা এই‌দিনটির নেপথ্যে ছিলেন? জানতে হলে দেখতে হবে গত এক শতাব্দী।

প্রতি বছর রাষ্ট্রসংঘের তরফে ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করা হয়। সমাজে নারীদের গুরুত্ব ও অবদানের কথা মনে করিয়ে দিতেই এই বিশেষ দিনটি পালনের শুরু। রাষ্ট্রসংঘের এবারের থিম প্রযুক্তি ও উদ্ভাবনের মাধ্যমে লিঙ্গসাম্য তৈরি করা। ইউনাইটেড নেশনসের সেক্রেটারি জেনারেল আন্তেনিও গুতেরেস বলেন, লিঙ্গসাম্য একদিকে যেমন মানুষের মৌলিক অধিকারগুলি সুনিশ্চিত করে, তেমনই আরেকদিকে পৃথিবীর অনেক খুঁটিনাটি সমস্যারও সমাধান করে। কিন্তু বর্তমান সময়ে মানুষের এই মৌলিক অধিকারই সুনিশ্চিত নয়‌। মৌলিক অধিকারের ক্ষতিসাধন করে পৃথিবীর কল্যাণের ক্ষতি করা হচ্ছে‌‌।’

কীভাবে শুরু হয়েছিল আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন?

আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করা কীভাবে শুরু হল? এর উত্তর জানতে হলে প্রায় এক শতাব্দী পিছিয়ে যেতে হবে। আমেরিকার সোশ্যালিস্ট পার্টি প্রথম ১৯০৯ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি জাতীয় নারী দিবস পালন করার কথা বলে। থেরেসা মালকিয়েল এই দিন বস্ত্র ব্যবসায়ীদের কথা স্মরণ করতেই এই বিশেষ দিন পালনের কথা বলেন। এরপরেই আমেরিকানদের থেকে উৎসাহিত হয়ে জার্মান সরকারের তরফে একটি দিন নারী দিবস হিসেবে পালনের কথা বলা হয়। যদিও এর জন্য কোনও তারিখ ঠিক করা হয়নি তখনও।

এরপর ডেনমার্কের কোপেনহেগেন শহরের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক কংগ্ৰেসেনারী অধিকার বিষয়ে বিশেষজ্ঞ আইনজীবী ক্লারা জেটকিন একটি আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালনের কথা বলেন। সেখানেই উপস্থিত ১৭জন মহিলা সদস্য তাঁকে সমর্থন জানান। ওঁদের মধ্যে ফিনল্যান্ডের প্রথম তিন সংসদীয় সদস্যও ছিলেন। মার্চেই এই দিনটির প্রাথমিক অনুষ্ঠান করা হয়। পরে ১৯১৩ সালে ৮ মার্চ দিনটিকে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে স্বীক্তি দেওয়া হয়।

১৯৯৬ সালে রাষ্ট্রসংঘ এই দিনটির বিশেষ থিম নির্বাচন করে। প্রথম থিম ছিল ‘অতীতের উদযাপন ও ভবিষ্যতের প্রস্তুতি’। এই থিমটি ১৯৭৫ সালে রাষ্ট্রসংঘেই প্রথম উদযাপিত হয়। ১৯৭৭ সালে রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় আন্তর্জাতিক নারী দিবস ৮ মার্চ পালন করা হয়। তখন থেকেই প্রতি বছর একটি বিশেষ থিম বা ভাবনা নিয়ে পালন করা হয় নারীদের এই দিনটি।

অনুমতি ব্যতিত এই সাইটের কোনো কিছু কপি করা কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয়।

প্রিয় পাঠক অনলাইন নিউজ পোর্টাল দ্যামেইলবিডি.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন themailbdjobs@gmail.com ঠিকানায়।

More articles

সর্বশেষ