26 C
Dhaka
বুধবার, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৩

গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আগামীকাল

যা যা মিস করেছেন

রিপন মিয়া, ফুলছড়ি (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ অনিয়মের অভিযোগে বন্ধ ঘোষিত জাতীয় সংসদের সংসদীয় আসন-৩৩, গাইবান্ধা-৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনের উপনির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচার-প্রচারণা গতকাল (৩ জানুয়ারি) মঙ্গলবার মধ্যরাতে শেষ হয়েছে।

আজকের দিনটি শেষ হলেই বুধবার ভোট। বুধবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোট গ্রহণ চলবে। এ নির্বাচন উপলক্ষে সাঘাটা, ফুলছড়ি উপজেলায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। নির্বাচন উপলক্ষে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

গতকাল শেষ দিনের প্রচার চালিয়েছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মাহমুদ হাসান রিপন, জাতীয়পার্টির প্রার্থী এ্যাড. গোলাম শহীদ রঞ্জু, বিকল্পধারা বাংলাদেশের জাহাঙ্গীর আলম, স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহবুবুর রহমান। এবার সব কেন্দ্র ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা হবে।

এ নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন ঢাকা বিভাগের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ ফরিদুল ইসলাম। এছাড়াও সহকারী রির্টানিং অফিসার হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন নওগাঁ জেলার নির্বাচনী কর্মকর্তা মোঃ কামরুল ইসলাম ও গাইবান্ধা জেলার নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল মোত্তালিব।

এই নির্বাচনের রির্টানিং কর্মকর্তা মোঃ ফরিদুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনের সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। আইন অনুযায়ী, ভোটের ৩২ ঘণ্টা আগে অর্থাৎ সোমবার মধ্যরাত থেকে প্রচার বন্ধ। মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) কেন্দ্রে কেন্দ্রে নির্বাচনী সামগ্রী পৌঁছে যাবে। তিনি বলেন, ভোটার ও প্রার্থীদের নিরাপত্তায় বাড়তি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কোনো ভোটকেন্দ্রে আইন বহির্ভূত কর্মকান্ড হলেই সে কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ বন্ধ করে দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে বুধবার মধ্যরাত পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টা যন্ত্রচালিত যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকবে।

কর্মকর্তা আরো জানান, ইসির অনুমতি সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী, তাদের নির্বাচনী এজেন্ট, দেশি-বিদেশি পর্যবেক্ষক ও সাংবাদিক, নির্বাচনের কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, নির্বাচনের বৈধ পরিদর্শকের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না। কিছু জরুরি কাজ যেমন- অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডাক ও টেলিযোগাযোগ ইত্যাদি কার্যক্রমে ব্যবহারের জন্য যানবাহন চলাচলে এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে।

নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়, এই আসনের দুই উপজেলায় মোট ১৭ টি ইউনিয়নের ১৪৫টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। তার মধ্যে ফুলছড়ি উপজেলায় ৫৭টি ও সাঘাটা উপজেলায় ৮৮ টি কেন্দ্র রয়েছে। সাঘাটা উপজেলায় ২ লক্ষ ২৫ হাজার ৭০ জন ও ফুলছড়ি উপজেলায় ১ লক্ষ ১৪ হাজার ৬৭৬ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

নির্বাচন অফিস সুত্রে আরো জানা যায়, গাইবান্ধা-৫ (ফুলছড়ি-সাঘাটা) আসনের উপ-নির্বাচনে সব ভোটকেন্দ্র ও কক্ষে সিসিটিভি স্থাপন করছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনী এলাকায় মোট এক হাজার ২৪২টি সিসিটিভি বসানো হয়েছে। ১৪৫টি ভোটকেন্দ্রের ভেতরে দুটি করে ২৯০ এবং ৯৫২টি ভোটকক্ষের সবকটির ভেতরে (গোপন বুথ ছাড়া) থাকবে সিসিটিভি।

উল্লেখ্য, গত ২৩ আগষ্ট এই আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার এড. ফজলে রাব্বী মিয়ার মৃত্যুতে গত ২৪ আগষ্ট এই আসনটি শূন্য ঘোষনা করে প্রজ্ঞাপন জারি করে নির্বাচন কমিশন। ১২ অক্টোবর অনুষ্ঠিত উপনির্বাচন অনিয়মের অভিযোগে বন্ধ ঘোষিত হয়।

More articles

সর্বশেষ

২ কেজি গাঁজাসহ আটক ২