আসলাম চৌধুরীর রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা ১০ দিনের রিমান্ড শুনানি আগামীকাল মঙ্গলবার

0
326

Bnp leader the mail bd

ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে মিলে সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের অভিযোগে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব এম আসলাম চৌধুরীর রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা ১০ দিনের রিমান্ড শুনানি আগামীকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হবে।

সোমবার (৩০ মে) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মারুফ হোসেন রিমান্ড আবেদনের শুনানিকালে হাইকোর্টের একটি আদেশের দুই বিপরীতমুখী ব্যাখ্যার সুযোগ থাকায় শুনানির জন্য মঙ্গলবার ধার্য করে ওই আদেশ দেন।

এছাড়াও মতিঝিল ও লালবাগ থানার নাশকতার দুটি মামলাতেও দুটি পৃথক আদালতে রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। মামলা দুটির রিমান্ড শুনানি আগামী ৬ জুন ধার্য করেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম নবী ও মাযহারুল ইসলাম।এদিন এই তিন মামলায় ১০ দিন করে মোট ৩০ দিনের রিমান্ড করেন তদন্তকারী কর্মকর্তারা।

গত বৃহস্পতিবার গুলশান থানায় আসলামের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করা হয়। ডিবির পরিদর্শক গোলাম রাব্বানী বাদী হয়ে মামলাটি করেন।
ডিএমপির গণমাধ্যম ও জনসংযোগ বিভাগের উপকমিশনার মো. মাসুদুর রহমান জানান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পাওয়ার পর আসলামের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ১২০ (বি), ১২১ (৩) ও ১২৪ (এ) ধারায় রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করা হয়। মামলায় আসলামের বিরুদ্ধে ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের এজেন্টের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ‘বাংলাদেশের সরকার উৎখাত ষড়যন্ত্রের অভিযোগ’ আনা হয়েছে।

সম্প্রতি ইসরায়েলের লিকুদ পার্টির সদস্য মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে আসলাম চৌধুরীর একটি ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। ইসরায়েলের ওই নেতার সঙ্গে তিনি ষড়যন্ত্রমূলক বৈঠক করেছেন বলেও গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। এরপরই গ্রেপ্তার হন আসলাম।

২৪ মে আসলামকে আদালতে হাজির করে মতিঝিল ও লালবাগ থানায় করা নাশকতার দুই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

১৫ মে সন্ধ্যায় রাজধানীর খিলক্ষেত এলাকা থেকে আসলামকে গ্রেপ্তার করে ডিবি। পরদিন ফৌজদারি কার্যবিধির (সন্দেহজনক) ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে তাঁকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়।

গ্রেপ্তারের আগে আসলাম চৌধুরীসহ সাতজনের বিরুদ্ধে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। দেশের প্রতিটি বিমানবন্দর ও স্থলবন্দরে সতর্কবার্তা পাঠানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here