28 C
Dhaka
বুধবার, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৩

বছর ধরে তদন্ত করেও প্রকৃত ঘাতক চিহ্নিত হয়নি

যা যা মিস করেছেন

Avijt  Rai the mail bd

লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায়ের হত্যারহস্য এক বছরেও উদ্ঘাটন হয়নি।  গত বছরের এই দিনে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসংলগ্ন ফুটপাতে খুন হন মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা।  

বছর ধরে তদন্ত করেও প্রকৃত ঘাতকদের চিহ্নিত করতে পারেনি পুলিশের গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য বিভাগ (ডিবি)।  তবে খুব শিগগিরই রহস্যজট খুলবে বলে ‘আশার বাণী’ শুনিয়েছে তদন্ত সংশ্লিষ্টরা।  গোয়েন্দা পুলিশের দাবি, তারা খুনিদের খুব কাছাকাছি পৌঁছে গেছেন।  যে কোনো দিন খুনিরা ধরা পড়বে।

সম্প্রতি বাড্ডায় এক জঙ্গি আস্তানায় অভিযানের সময় গ্রেফতার আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) এক সদস্য অভিজিৎ হত্যার সঙ্গে জড়িত বলেও সন্দেহ গোয়েন্দাদের।  এবিটির ওই সদস্য বর্তমানে পুলিশ রিমান্ডে রয়েছেন।  তবে মামলার তদন্ত নিয়ে চরম ক্ষোভ ও হতাশা রয়েছে অভিজিতের পরিবারে।

জানতে চাইলে অভিজিতের বাবা ও মামলার বাদী অধ্যাপক ড. অজয় রায় বলেন, ‘প্রত্যাশার জায়গাটা ক্রমেই সংকীর্ণ হয়ে যাচ্ছে।  তবুও মানুষ আশা নিয়ে বেঁচে থাকে।  দেখা যাক, সরকার হয়তো কিছু করবে।’

বিচার না হলে আর বাংলাদেশে ফিরবেন না বলে জানিয়েছেন নিহতের স্ত্রী ও ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী অভিজিতের স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যা (বন্যা আহমেদ)।

গত বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে অমর একুশে বইমেলা থেকে বের হওয়ার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির কাছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসংলগ্ন ফুটপাতে খুন হন মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা ও লেখক প্রকৌশলী অভিজিৎ রায়।  আহত হন তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ।
এ বিষয়ে কাউন্টার টেররিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান ও ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার  বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো আলামতের পরীক্ষা ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।
ডিএনএ রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরই সম্ভাব্য খুনিদের সঙ্গে প্রোফাইলিং করে দেখা হবে।  তিনি আরও বলেন, অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডের সময় দুইজন উপস্থিত থাকলেও এ ঘটনায় বিভিন্নভাবে আরও বেশ কয়েকজন জড়িত।  তাদের চিহ্নিত করা হয়েছে।  খুব দ্রুত এ মামলার সফল সমাপ্তি ঘটবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

More articles

সর্বশেষ