বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে বাংলাদেশের শুভ সূচনা

0
446

Banggobondhu gold cup the mail bd

বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ৪-২ গোলে হারিয়ে দারুণ সূচনা করেছে বাংলাদেশ।  বাংলাদেশের শাখাওয়াত হোসেন রনি দুটি, নাবীব নেওয়াজ জীবন ও ইয়াসিন খান একটি করে গোল করেছেন।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এটি বাংলাদেশের একাদশ জয়। গত আসরে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েই সেমি-ফাইনালে উঠেছিল স্বাগতিকরা। ‘এ’ গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে আগামী ১২ মঙ্গলবার মালয়েশিয়ার বিপক্ষে খেলবে মামুনুলরা।

যশোরের শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে শুক্রবার ম্যাচে হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাসকে ছাড়াই সেরা একাদশ সাজান বাংলাদেশ কোচ মারুফুল হক। শুরু থেকে আক্রমণাত্মক খেলতে থাকে সাফ ফুটবলের গ্রুপ পর্ব থেকে ছিটকে পড়া মামুনুলরা।  তৃতীয় মিনিটে রনির ক্রসে কেউ পা লাগাতে না পারায় এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ নষ্ট হয় বাংলাদেশের।  সপ্তদশ মিনিটে রনিই স্বাগতিক সমর্থকদের গোলের আনন্দে ভাসান।  ডান দিক থেকে জাহিদের মাপা ক্রসে দারুণ প্লেসিং শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন এই ফরোয়ার্ড।

তিন মিনিট পরই বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার আনন্দ উবে যায়। বক্সের মধ্যে নাসিরউদ্দিন চৌধূরী দানানজু ডি সিলভাকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় শ্রীলঙ্কা। এডিসন ফিগুরাডো গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেলকে প্রতিরোধের কোনো সুযোগই দেননি। ২২তম বাংলাদেশের মুখে স্বস্তির হাসি ফেরান ইয়াসিন। অধিনায়ক মামুনুল ইসলামের কর্নারে শেষ মুহূর্তে বসে পড়ে নেওয়া ইয়াসিনের হেড ঠিকানা খুঁজে পায়।

৩২তম মিনিটে মামনুলকে বল বাড়িয়ে ভেতরে দিকে ছুটেছিলেন নাসিরুল ইসলাম কিন্তু অধিনায়কের বাড়ানো বলে শেষ পর্যন্ত শট নিতে পারেননি তিনি। এরপর নাসিরুলের ক্রসে রনির হেড ক্রসবারের উপর দিয়ে যায়। শ্রীলঙ্কার রক্ষণে চাপ বজায় রেখে ৪২তম মিনিটে তৃতীয় গোলটি তুলে নেয় বাংলাদেশ। অতিথি দলের চালানা চামেরা হাত দিয়ে বল ঠেকালে ফ্রি-কিক পায় স্বাগতিকরা। ডি-বক্সের একটু বাইরে থেকে জাহিদের নেয়া ফ্রি-কিক আলতো টোকায় লক্ষ্যে পৌঁছে দেন জীবন।

তবে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে লঙ্কান শিবির। যার বদৌলতে একটি গোলের দেখাও পেয়ে যায় তারা। ৫২ মিনিটে শ্রীলঙ্কার হয়ে গোলটি করে ব্যবধান ৩-২ এ নামিয়ে আনেন সানজুয়া। শেষের দিকে আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ হয়েছে বেশ। তবে শেষটা মধুর স্বাগতিকদেরই। বাংলাদেশের হয়ে শেষ গোলটি করে দলকে উৎসবে মাতান সাখাওয়াত হোসেন রনি।

গত আসরে এই টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিল ছয়টি দল।  এবার তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে আটটিতে।  বিদেশী দল ছয়টি হলো বাহরাইন, মালয়েশিয়া, কম্বোডিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল ও শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশ থেকে দুটি টিম খেলছে এই টুর্নামেন্টে, বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল ও বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ ফুটবল দল।

এ গ্রুপে গতবারের চ্যাম্পিয়ন মালয়েশিয়ার সঙ্গে রয়েছে বাংলাদেশ, নেপাল ও শ্রীলংকা।  অন্যদিকে বি গ্রুপে রয়েছে শক্তিশালী মালদ্বীপ, বাহরাইন, কম্বোডিয়া ও বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ ফুটবল দল।  ভারতের শিলংয়ে অনুষ্ঠেয় এসএ গেমসের প্রস্তুতি নিতেই এবারের আসরে অনূর্ধ্ব-২৩ দলকে খেলানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here